খেলা

রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯ (১১:০২)

শ্রীলংকাকে ৮৭ রানে হারালো অস্ট্রেলিয়া

শ্রীলংকাকে ৮৭ রানে হারালো অস্ট্রেলিয়া

শ্রীলংকাকে হারিয়ে শীর্ষ স্থান দখল করল চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। আইসিসি বিশ্বকাপের বিশতম ও আজ দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে লংকানদের ৮৭ রানের বড় ব্যবধানে হারায় অস্ট্রেলিয়া।

চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার এটা চতুর্থ জয়। পাঁচ ম্যাচ খেলা অস্ট্রেলিয়া মাত্র একটি ম্যাচে হেরেছে। এর ফলে সর্বোচ্চ ৮ পয়েন্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে পিছনে ফেলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে এখন অস্ট্রেলিয়া। ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নিউজিল্যান্ড। আর এই ম্যাচে হেরে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠার স্বপ্ন প্রায় শেষ হয়ে গেল লংকানদের। কারণ দলটির সংগ্রহ ৫ ম্যাচে মাত্র ৪ পয়েন্ট।

ওভালে টস জিতে আগে ব্যাট করে ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ৩৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়েই জয়ের পথে এগিয়ে যায় দলটি। জয়ের জন্য ৩৩৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের বোলিং আক্রমণে শেষ পর্যন্ত দাঁড়াতেই পারেনি লংকানরা। মিচেল স্টার্ক আর রিচার্ডসনের বোলিংয়ে মাত্র ২৪৭ রানে অলআউট হয় শ্রীলংকা। ফলে ৮৭ রানে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। স্টার্ক ৪টি, রিচার্ডসন ৩টি ও প্যাট কামিন্স ২ উইকেট শিকার করেন। ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় সেঞ্চরি করা ফিঞ্চ।

জয়ের জন্য শ্রীলংকার সামনে ৩৩৫ রানের টার্গেটটা কঠিনই ছিল। তবে ৩৩৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অসাধারণ করে দলটি। উদ্বোধনী জুটিতে কুশল পেরেরা ও দিমুথ করুনারতেœ মিলে ঝড়ো ব্যাটিং করে দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে সফলও হয় এই জুটি। কারণ ওপেনিং জুটি ভাঙ্গার আগেই শ্রীলংকা পৌঁছে যায় ১১৫ রানে। তবে পেরেরার বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি।

মিচেল স্টার্ক এর বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়ার আগে ৩৬ বলে ৫২ রান করেন পেরেরা। তার ৫২ রানের ইনিংসে ছিল ৫টি চার আর একটি ছক্কার মার। পেরেরা ফিফটি করে আউট হলেও সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে ছিলেন অপর ওপেনার দিমুথ করুনারতেœ। কিন্তু ৯৭ রানে গিয়ে আউট হন এই অধিনায়ক। মাত্র তিন রানের জন্য সেঞ্চুরি করতে পারেননি তিনি। রিচার্ডসনের বলে ম্যাক্সওয়েলকে ক্যাচ দিয়ে আউট হওয়ার আগে ১০৮ বলে ৯ বাউন্ডারিতে তিনি করেন ৯৭ রান।

দলীয় ১৫৩ রানের মধ্যে দুই ওপেনারের বিদায়ে রানের গতি কিছুটা কমতে থাকে লংকানদের। ব্যাট করতে নেমে দলের হয়ে ভালো করতে পারেননি থিরিমান্নে। মাত্র ১৬ রান করে আউট হলে ১৮৬ রানে প্রথম তিন উইকেট হারায় লংকারা। তবে কুশল মেন্ডিস আর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস মিলে দলকে ২০০ রানের ঘরে নিয়ে যায়। দলীয় ২০৫ রানে ম্যাথুস আর দলীয় ২০৯ রানে মিলিন্দা সিরিবর্ধনের দ্রুত বিদায়ে বেশ চাপে পড়ে লংকানরাা। ম্যাথুস ৯ রান করলেও সিরিবর্ধনে করেন মাত্র ৩ রান। ব্যাট করতে নেমে থিসারা পেরেরা রানের খাতা খোলার আগে বিদায় নিলে ২১৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে শ্রীলংকা।

ম্যাথুসকে কামিন্স ফেরানের পর সিরিবর্ধনে আর পেরেরাকে ফিরান মিচেল স্টার্ক। দলীয় ২২২ রানে মেন্ডিসকে আউট করে স্টার্ক শ্রীলংকার জয়ের স্বপ্ন একেবারে ভেংগে দেন। আউট হওয়ার আগে ৩৭ বলে দুই ছক্কায় ৩০ রান করেন মেন্ডিস। শেষ পর্যন্ত শ্রীলংকার স্কোর থেমে যায় ৪৫.৫ ওভারে ২৪৭ রানে। দলটি খেলতে পারেনি পুরো ৫০ ওভার।

এর আগে অধিনায়ক ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে শ্রীলংকাকে জয়ের জন্য ৩৩৫ রানের বিশাল টার্গেট দিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। লন্ডনে টুর্নামেন্টের বিশতম ও আজ দিনের প্রথম ম্যাচে টস হেওে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে বিশাল ৩৩৪ রান করে চ্যাম্পিয়নরা। ফিঞ্চের সেঞ্চুরির পাশাপাশি স্টিভেন স্মিথের ৭৩ রান আর ম্যাক্সওয়েলের অপিরাজিত ৪৬ রানের উপর ভর করে ৩৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়ে দলটি। দুই ওপেনার ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার দলকে পৌঁছে দেয় ৮০ রানে।

ডেভিড ওয়ার্নারের বিদায়ে ভাংগে এই জুটি। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে সরাসরি বোল্ড আউট হওয়ার আগে ৪৮ চলে ২৬ রান করেন গত ম্যাচের সেঞ্চরিয়ান ওয়ার্নার। ডেভিড ওয়ার্নারকে হারানোর ধাক্কা সামলে নিতে অ্যারন ফিঞ্চ নতুন জুটি করেন ওসমান খাজাকে নিয়ে। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে নিজেকে প্রমান করতে পারেননি খাজা।

দলকে ১০০ রানে পৌছে ব্যক্তিগত মাত্র ১০ রান করে ডি সিলভার দ্বিতীয় শিকারে পরিনত হন খাজা। খাজার বিদায়ে ফিঞ্চ নতুন জুটি করেন স্টিভেন স্মিথকে নিয়ে। এই দু’জনের ব্যাটে ভর করেই বড় স্কোরের সুযোগ পায় অস্ট্রেলিয়া। তৃতীয় উইকেট জুটিতে স্টিভেন স্মিথের সঙ্গে ১৭৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ফিঞ্চ। এই জুটি ভাংগার আগেই ২৭৩ রানে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।

দলীয় ১৭৩ রানে ফিঞ্চের বিদায়ে ভাংগে এই সফল জুটি। আউট হওয়ার আগে দলের পক্ষে সেঞ্চুরিসহ ১৫৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ফিঞ্চ। সেঞ্চুরির পাশাপাশি চলমান বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রানের মালিকও এখন এই অধিনায়ক। ইসুরু উদানার বলে আউট হওয়ার আগে ৯৭ বলে সেঞ্চুরি করা ফিঞ্চ ১৩২ বলে ১৫টি চার ও ৫টি ছক্কায় ১৫৩ করেন তিনি। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা রানও। দলীয় ২৭৪ রানে আউট হন স্মিথ। লাসিথ মালিঙ্গার বলে বোল্ড হওয়ার আগে স্মিথ ৫৯ বলে ৭টি চার ও একটি ছক্কায় ৭৩ রান করেন।

ব্যাট করতে নেমে ভালো করতে পারেননি শন মার্শ, অ্যাওেলক্স ক্যারি আর প্যাট কামিন্স। শন মার্শকে মাত্র তিন রানে ফিরিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন উদানা। ব্যাট করতে নেমে অ্যালেক্স ক্যারি ৪ রান করলেও রানের খাতা খোলার আগেই রান আউট হন প্যাট কামিন্স। শ্রীলংকার বোলারদের মধ্যে ডি সিলভা ও উদানা দুটি করে উইকেট নেন। মালিঙ্গা নেন একটি উইকেট।

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য দল ঘোষণা

ঢাকা সফরে ব্যস্ত দিন কাটাচ্ছেন ফিফা সভাপতি

রেকর্ড গোল্ডেন বুট জিতলেন মেসি

১৭ বছর বয়সে ডাবল সেঞ্চুরি করে রেকর্ড বইয়ে জয়সওয়াল

ফিফা সভাপতি আসছেন আজ

বিশ্বকাপের বিতর্কিত ‘বাউন্ডারি’ নিয়ম বাদ দিল আইসিসি

এগিয়ে থেকেও ভারতের সঙ্গে ড্র করল বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল করল আইসিসি

সর্বশেষ খবর

শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য দল ঘোষণা

পাঁচবিবিতে ‘বন্দুকযুদ্ধে' শীর্ষ সন্ত্রাসী ক্যাসেট আমিনুল নিহত

বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নয়নে ফিফা’র সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে : ফিফা সভাপতি