রাজনীতি

বুধবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৪ (১৭:২১)

ডালিয়া পয়েন্ট মির্জা ফখরুল

মিত্রদের খুশি রাখতেই দর কাষাকষি চায় না সরকার

তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা

তিস্তা

মিত্রদের খুশি রাখতেই তিস্তার পানি নিয়ে দর কাষাকষি করতে চায় না সরকার বলে জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে তিস্তা অভিমুখে বিএনপির লংমার্চ নীলফামারীর ডালিয়ার পৌঁছানোর পর সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশপ্রেমিক নেত্রী তিনি যে ডাক দিয়েছেন তার হুঙ্কারেই ভারত তিস্তায় পানি দিয়েছে।

তবে তা যথেষ্ট নয়- উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আন্তর্জাতকি নিয়ম অনুযায়ী তিস্তায় ভারতের ১০ হাজার কিউসেক পানি দেয়ার কথা। এই পরিমাণ পানি দিতে হবে এবং তা অব্যাহত রাখতে হবে। তাহলেই ভারতের সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্ব অব্যাহত থাকবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, পানির অধিকার, জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনতে আগামীদিনে আমাদের আরো অনেক আন্দোলন-সংগ্রাম করতে হবে। তিনি বলেন, পানির দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রাখা হবে। সামনে আরো বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। বুধবার বেলা ১২টার দিকে লংমার্চ ডালিয়া পয়েন্টে পৌঁছায়।

সেখানে বিএনপির থানা ও জেলা পর্যায়ের নেতাদের পর দলের কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য দেন।

সমাবেশস্থলে বিএনপি ছাড়াও জামাতসহ ১৮ দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে তিস্তা অভিমুখে বিএনপির লংমার্চ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা থেকে শুরু হয়। এরপর সন্ধ্যায় শান্তিপূর্ণভাবেই লংমার্চ রংপুরে পৌঁছে। সেখানে রাত যাপন শেষে বুধবার সকালে নীলফামারীর ডালিয়ায় তিস্তা ব্যারাজের উদ্দেশে যাত্রা করে লংমার্চ। অবশ্য লংমার্চে লোকসমাগম ও বহরে গাড়ির সংখ্যা তুলনামূলক কম ছিল।

প্রথমদিনে ছয়টি পথসভায় লংমার্চে নেতৃত্ব দেয়া দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কর্মসূচি সফল হয়েছে দাবি করে বলেন, বিশ্বাসযোগ্য সূত্রে জানতে পারলাম, লংমার্চের কারণে ভারত তিস্তায় কিছুটা পানি ছেড়েছে। এটা লংমার্চের প্রাথমিক সাফল্য।

তিনি বলেন, সাময়িক নয়, তারা পুরোপুরি সফলতা চান।

মঙ্গলবার সকাল ৯টায় রাজধানীর উত্তরার আজমপুর ওভার ব্রিজের কাছে এক পথসমাবেশের মধ্য দিয়ে লংমার্চ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এরপর শতাধিক গাড়ির বহর নিয়ে লংমার্চ যাত্রা সূচনা হয়। ঢাকা মহানগর ও পার্শ্ববর্তী জেলা মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী থেকে গাড়ি লংমার্চের বহরে অংশ নিয়েছে। শুরু থেকে গতকাল রংপুর পৌঁছানো পর্যন্ত কোথাও বিএনপির নেতাকর্মীদের বিপুল উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। বিশেষ করে স্থায়ী কমিটি, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এবং কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির নেতাদের উপস্থিতি ছিল খুবই কম। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে ছিলেন শুধু নজরুল ইসলাম খান, শীর্ষ স্থানীয় কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে ছিলেন চার ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সাবেক পানিসম্পদমন্ত্রী মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সেলিমা রহমান এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, শামসুজ্জামান দুদু ও আহমেদ আজম খান।

এছাড়াও রয়েছে

ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক মামুনকে অব্যাহতি

করোনা মেট্রোরেল প্রকল্প ওলট-পালট করে দিয়েছে: কাদের

বিএনপি সব সময় অসহায় ও গরিব মানুষের পাশে থাকে: রিজভী

দুদেশের সম্পর্কের মধ্যে কৃত্রিম দেয়াল এখন আর নেই: কাদের

দুর্নীতির কারণে পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের দাম আকাশচুম্বী: ফখরুল

দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ার প্রত্যয় প্রধানমন্ত্রীর

বিএনপিকে পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বললেন ওবায়দুল কাদের

বাহাউদ্দিন নাছিম করোনায় আক্রান্ত

আরও খবর

  • প্রধানমন্ত্রী আজ জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন

    প্রধানমন্ত্রী আজ জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন

  • পাকিস্তান সফরে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না জিম্বাবুয়েকে

    পাকিস্তান সফরে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না জিম্বাবুয়েকে

  • ক্রেডিট কার্ডের সর্বোচ্চ সুদ নির্ধারণ করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

    ক্রেডিট কার্ডের সর্বোচ্চ সুদ নির্ধারণ করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • ৬ মাস পর আবাসিক হোটেল-বার খুলছে

    ৬ মাস পর আবাসিক হোটেল-বার খুলছে

সর্বশেষ খবর

করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ লাখ ছুঁইছুঁই

বাফুফেকে নিয়ে অপমানজনক পোস্ট দিলে মামলা

এমসি কলেজে গৃহবধূকে গণধর্ষণ: আসামি সাইফুর রহমান গ্রেপ্তার

যুক্তরাষ্ট্রে ট্যাপের পানিতে আবারও মস্তিষ্কখেকো অণুজীব, পানি ব্যবহারে মানা