আন্তর্জাতিক

বুধবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২১ (১৬:০০)

অস্ত্রের বাজারে দাপট যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের

অস্ত্রের বাজারে দাপট যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের

বৈশ্বিক অস্ত্রের বাজারে ২০১৯ সালে সবচেয়ে বেশি আধিপত্য ছিল যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের। গত বছর বিশ্বে যে পরিমাণ অস্ত্র বিক্রি হয়েছে, তার প্রায় ৭৭ শতাংশই ছিল এই দুটি দেশের। আর মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম কোনো কম্পানি হিসেবে শীর্ষ অস্ত্র উৎপাদনকারীর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিষ্ঠান ‘ইডিজিই’। সুইডেনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট’ (এসআইপিআরআই) গতকাল এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

শীর্ষ অস্ত্র উৎপাদনকারী ২৫টি কম্পানির একটি তালিকা করেছে এসআইপিআরআই। এর মধ্যে প্রথম পাঁচটি প্রতিষ্ঠানই যুক্তরাষ্ট্রের। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মার্টিন, বোয়িং, নর্থরোপ গ্রুমম্যান, রেথিওন ও জেনারেল ডাইনামিকস। চীনের প্রতিষ্ঠান এভিআইসি, সিইটিসি ও নরিনকো আছে যথাক্রমে ষষ্ঠ, অষ্টম ও নবম স্থানে। আরেক মার্কিন প্রতিষ্ঠান ‘এলথ্রিহ্যারিস টেকনোলজিস’ আছে দশম স্থানে। এই দুই দেশের বাইরে শীর্ষ দশে থাকা একমাত্র প্রতিষ্ঠান হলো যুক্তরাজ্যের ‘বিএই সিস্টেমস’।

এই ২৫টি কম্পানির অস্ত্র বিক্রির পরিমাণ গত বছর সাড়ে ৮ শতাংশ বেড়েছে। মোট অস্ত্র বিক্রি হয়েছে ৩৬ হাজার ১০০ কোটি ডলারের, যা জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের বার্ষিক বরাদ্দের প্রায় ৫০ গুণ বেশি।

এসআইপিআরআইয়ের অস্ত্র ও সামরিক ব্যয় বিভাগের পরিচালক লুসি বেরাউদ-সুদরিউ বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র কয়েক দশক ধরেই অস্ত্রের বাজারে আধিপত্য দেখিয়ে আসছে, কিন্তু চীনের উত্থানটা শুরু হয় ২০১৫ সালে; দেশটির সামরিক বাহিনীর আধুনিকায়নের পর থেকে।’

এসআইপিআরআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শীর্ষ ২৫টি প্রতিষ্ঠান মোট যে পরিমাণ অস্ত্র বিক্রি করেছে, তার ৬১ শতাংশই যুক্তরাষ্ট্রের। চীনের আছে ১৫.৭ শতাংশ।

লুসি বেরাউদ-সুদরিউ বলেন, ‘তালিকার প্রথম দিকে হয়তো ইউরোপের কম্পানি কম আছে, কিন্তু সব কম্পানিকে একসঙ্গে করলে দেখা যাবে, তারাও কম অস্ত্র বিক্রি করেনি। যুক্তরাষ্ট্র বা চীনের তুলনায় বিক্রি করা অস্ত্রের পরিমাণ কম হলেও ইউরোপের বাজার অনেক বেশি বিস্তৃত।’ উদাহরণ হিসেবে তিনি জানান, ইউরোপের কম্পানি এয়ারবাস ও থালেস ২৪টি দেশে অস্ত্র বিক্রি করে। এই তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের বোয়িংয়ের পরই তাদের অবস্থান।

মধ্যপ্রাচ্যের কোনো কম্পানি হিসেবে শীর্ষ ২৫ অস্ত্র উৎপাদনকারীর তালিকায় প্রথমবারের মতো জায়গা করে নিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ‘ইডিজিই’। তালিকায় তাদের অবস্থান ২২তম। ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠান ‘দাসাল্ত’ ৩৮ থেকে এক লাফে চলে এসেছে তালিকার ১৭তম স্থানে। গত বছর পর্যাপ্ত পরিমাণে রাফায়েল যুদ্ধবিমান বিক্রি করায় এই উলম্ফন ঘটে তাদের। তালিকায় রাশিয়ার দুটি কম্পানি রয়েছে। এগুলো হলো আলমাজ-আন্তি (১৫তম) ও ‘ইউনাইটেড শিপবিল্ডিং’ (২৫তম)।

লুসি বেরাউদ-সুদরিউ বলেন, ২০১৪ সালে ক্রিমিয়া দখলের পর রাশিয়ার ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা অনেক বেড়ে যায়। এর প্রভাবে দেশটির অস্ত্র বিক্রি অনেক কমে গেছে। / টাইমস অব ইন্ডিয়া

এছাড়াও রয়েছে

নাইজেরিয়ায় ফের কয়েকশত শিক্ষার্থী অপহরণ

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন ২৭ মার্চ থেকে, ফলাফল ২ মে

করোনা: বিশ্বে মৃত্যু ছাড়ালো ২৫ লাখ

রাশিয়া ও ইরানের কয়েকশ একাউন্ট বন্ধ ঘোষণা টুইটারের

বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২৫ লাখ ছুঁইছুঁই

ইকুয়েডরে কারাগারে দাঙ্গায় নিহত ৬২

মুম্বাইয়ের হোটেলে সংসদ সদস্যের আত্মহত্যা

সৌদির সাবেক তেলমন্ত্রী আহমেদ জাকি আর নেই

আরও খবর

  • আত্মসমর্পণ করলেন সংগীত শিল্পী মিলা

    আত্মসমর্পণ করলেন সংগীত শিল্পী মিলা

  • রাশিয়া ও ইরানের কয়েকশ একাউন্ট বন্ধ ঘোষণা টুইটারের

    রাশিয়া ও ইরানের কয়েকশ একাউন্ট বন্ধ ঘোষণা টুইটারের

  • ঝগড়া করে ট্রেনের সামনে প্রেমিকা, বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল প্রেমিকের!

    ঝগড়া করে ট্রেনের সামনে প্রেমিকা, বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল প্রেমিকের!

  • অকস্মাৎ চলে গেলেন সৈয়দ আবুল মকসুদ

    অকস্মাৎ চলে গেলেন সৈয়দ আবুল মকসুদ

সর্বশেষ খবর

নাইজেরিয়ায় ফের কয়েকশত শিক্ষার্থী অপহরণ

সুখবর দিতে শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার লেখক মুসতাকের কারাগারে মৃত্যু

দুই বিশ্বকাপজয়ী ইউসুফ পাঠান অবসরে