নির্বাচন

রবিবার, ১০ মার্চ, ২০১৯ (১৮:৫৯)

দীর্ঘ ২৮ বছরের অচলায়তন ভেঙে ডাকসু-হল নির্বাচন সোমবার

দীর্ঘ ২৮ বছরের অচলায়তন ভেঙে ডাকসু-হল নির্বাচন সোমবার

দীর্ঘ ২৮ বছরের অচলায়তন ভেঙে কাল-সোমবার হতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসু ও হল নির্বাচন— সব প্রস্তুতি সম্পন্ন।

সকাল ৮ থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। এবার ভোটার ৪৩ হাজার ২৫৬ জন। প্রত্যেককে ৩৮টি করে ভোট দিতে পারবেন। ডাকসুতে ২৫টি পদের জন্য লড়ছেন ২২৯ প্রার্থী। আর ১৮টি আবাসিক হলে মোট প্রার্থী ৫০৯ জন। একেকটি হলে ১৩টি পদে নির্বাচন হবে।

ডাকসুতে প্যানেল দিয়ে নির্বাচন করছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, বাম সংগঠনগুলোর জোট, কোটা আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, জাসদ ছাত্রলীগ, ছাত্রলীগ বিসিএল, ছাত্র মৈত্রী, স্বতন্ত্র জোট, ছাত্র মুক্তি জোট, জাতীয় ছাত্র সমাজ, বাংলাদেশ ছাত্র আন্দোলন। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীও রয়েছেন। গতকাল শেষ হয়েছে প্রচারণা।

আজ-রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার সাতটি স্পটে চেক পোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালাচ্ছে। এরই মধ্যে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগের মধ্যেদিয়ে ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন কাল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে সক্রিয় ছাত্র সংগঠনগুলোর মধ্যে ছাত্রলীগ ছাড়া আর কোনো সংগঠনই বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দিতে পারেনি।

ডাকসুর গঠনতন্ত্রে নির্বাচন করার বয়স ত্রিশের মধ্যে দেয়া আর ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের দৌরাত্বের কারণে হলগুলোতে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দেয়া সম্ভব হয়নি বলে অভিযোগ ছাত্রদলসহ অন্যান্য ছাত্র সংগঠনগুলোর।

তবে এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন উল্লেখ করে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, কর্মী সংকটের কারণেই অনেকের পক্ষে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দেয়া সম্ভব হয়নি।

ডাকসু নির্বাচনে কেন্দ্রীয়ভাবে ২৫টি এবং হল সংসদ নির্বাচনের জন্য ১৩টি পদ রয়েছে।

ডাকসুর ২৫টি পদের জন্য দুইশোর বেশি প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। আর হল সংসদ নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন পাঁচ শতাধিক প্রার্থী।

তবে, ডাকসুর কেন্দ্রীয় ২৫টি পদের জন্য সক্রিয় সকল সংগঠন পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দিতে পারলেও বিশ্বদ্যালয়ের হলগুলোর জন্য নির্ধারিত ১৩টি পদের ক্ষেত্রে ছাত্রলীগ ছাড়া আর কেউ পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দিতে পারেনি।

ডাকসুর গঠনতন্ত্র পরিবর্তনের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের অবস্থান না থাকার কারণে হলগুলোতে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দেয়া সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে ছাত্রদল।

আর বিশেষ একটি ছাত্র সংগঠনের দৌরাত্বের কারণে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল দেয়া যায়নি বলে অভিযোগ বামসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীদের।

তবে, কর্মী সংকট আর নিজেদের জনপ্রিয়তা না থাকার কারণে অন্যান্য সংগঠন প্যানেল দিতে পারেনি বলে জানিয়েছে ছাত্রলীগ নেতারা।

এরই মধ্যে হল সংসদ নির্বাচনে তাদের বেশ কিছু প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন বলে জানান তারা।

এছাড়াও রয়েছে

বিএনপির আবেদন নাকচ করলেন ইসি সচিব

রাজধানীর সিটি কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ভোটারশূন্য ভোট কেন্দ্র!

আতঙ্কের মধ্য দিয়ে শুরু উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ

অবশেষে চসিকসহ সব উপনির্বাচন স্থগিত

ঢাকা-১০ আসনে আ’লীগের শফিউল বিজয়ী, ভোট পড়েছে ৫.২৮%

চট্টগ্রামে নির্বাচনী সহিংসতায় যুবকের মৃত্যু

উপনির্বাচন নিয়ে জরুরী বৈঠকে ইসি

আরও খবর

  • নিউক্যাসলের জালে ম্যান সিটির ৫ গোল

    নিউক্যাসলের জালে ম্যান সিটির ৫ গোল

  • মানুষের মুখ বন্ধ করতে ডিজিটাল আইনে মামলার হিড়িক : রিজভী

    মানুষের মুখ বন্ধ করতে ডিজিটাল আইনে মামলার হিড়িক : রিজভী

  • ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ রোহিঙ্গা নিহত, তিন লাখ ইয়াবা উদ্ধার

    ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ রোহিঙ্গা নিহত, তিন লাখ ইয়াবা উদ্ধার

  • স্বর্ণের দামে নতুন রেকর্ড

    স্বর্ণের দামে নতুন রেকর্ড

সর্বশেষ খবর

রিজেন্ট মালিকের অপকর্মে সরকারের মদদ ছিল : ফখরুল

দুর্নীতির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার অবস্থান কঠোর

দুর্নীতির বীজ মহিরুহ হয়ে গেছে: প্রধানমন্ত্রী

শিগগিরই কলেজে ভর্তি শুরু হবে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী