জাতীয়

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ (১৮:৩৬)

সৌদিতে নারী শ্রমিকদের পরিবেশের পরিবর্তন আনা হচ্ছে: রামরু

সৌদিতে-নারী-শ্রমিকদের-পরিবেশের-পরিবর্তন-আনা-হচ্ছে-রামরু

সৌদিতে নারী শ্রমিকদের পরিবেশের পরিবর্তন আনা হচ্ছে: রামরু

সৌদিসহ কয়েকটি দেশে নারী শ্রমিকদের নিরাপত্তায় নতুন প্রকল্প নেয়া হয়েছে— বাংলাদেশে অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করে এমন একটি বেসরকারি সংস্থা রামরু' এ তথ্য জানিয়েছে।

বামরুর তথ্যমতে, এ প্রকল্প করা হলে অভিবাসী নারী শ্রমিকদের ওপর নির্যাতনের সম্ভাবনা কমে আসবে।

সংস্থাটি বলছে, নতুন ব্যবস্থায় অভিবাসী নারী শ্রমিকদের বাসায় না রেখে বিভিন্ন হোস্টেলে রাখা হবে— সেখান থেকে তারা কাজে যাতায়াত করবেন।

সরকারি হিসেবে এ বছরের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ৯ লাখ ৬০ হাজার শ্রমিক বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন দেশে গেছে। তবে বেসরকারি সংস্থাগুলো বলছে এই সংখ্যা ১০ লাখের বেশি। আর এসব শ্রমিকের অর্ধেকের বেশি গিয়েছেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবে। তাদের একটি বড় অংশ নারী শ্রমিক, যারা মূলত গৃহকর্মী হিসাবে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে কাজ করতে গিয়েছেন।

বেসরকারি সংস্থা রামরু'র প্রধান তাসনিম সিদ্দিকী জানান, অভিবাসনের হিসাবে ২০১৭ সালটি একটি ভালো বছর, কারণ এ বছর ১০ লাখের বেশি বাংলাদেশি অভিবাসী হয়েছে। এদের অর্ধেকের বেশি গেছেন সৌদি আরবে।

তিনি আরও বলেন, নারী শ্রমিকদের উপর গৃহের অভ্যন্তরে নির্যাতন যে পুরোপুরি বন্ধ হয়েছে তা নয়। তবে সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে একটি বড় অগ্রগতি হয়েছে যে, সেখানে কর্মরত নারীদের বাড়িতে না রেখে বিভিন্ন ধরণের হোস্টেল তৈরি করে সেখানে নারী শ্রমিকদের রাখা, সেখান থেকে তাদের কাজে আনা নেয়া করার একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। সেটা যদি সফল হয়, নারী যদি গৃহে বন্দী না থাকেন, তাহলে তাদের ওপর যৌন নির্যাতন বা শারীরিক নির্যাতনের সুযোগ কমে যাবে।

বামরু'র গবেষণায় দেখা গেছে, বিদেশ থেকে অনেক অভিবাসী শ্রমিক আবারও দেশে ফিরে আসছে। আর বিদেশ থেকে কষ্টার্জিত আয় সঠিক নির্দেশনা না পেয়ে এমনিতেই খরচ করে ফেলছে। ড. সিদ্দিকীর মতে, এই অভিবাসী শ্রমিকরা দেশে ফিরে আসার পর যাতে তাদের সঞ্চিত অর্থ ঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারে, সেজন্য সরকারি প্রণোদনা দরকার।

এবছর ইউরোপে অবৈধ ভাবে বাংলাদেশিদের অভিবাসী হওয়ার খবর গণমাধ্যমে এসেছিল। যারা সমুদ্র পথে লিবিয়া হয়ে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ঢুকে পড়েছিলেন। এসব কারণে এ বছরে বাংলাদেশকে কোণঠাসা অবস্থায় পড়তে হয়েছে বলে বলছেন ড. সিদ্দিকী। সূত্র : বিবিসি বাংলা

অ্যাম্বুলেন্স অ্যাম্বুল্যান্স

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

মিয়ানমার এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ নয়

প্রত্যাবাসন চুক্তি চূড়ান্ত: রোহিঙ্গারা ফিরবে ২ বছরে

রাজধানীর রাস্তায় পাওয়া যাবে অ্যাপভিত্তিক অটোরিকসা

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন: নেপিদোতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক

আরও খবর

মিয়ানমার এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ নয়

শাহজালালে যাত্রীর অন্তর্বাস থেকে স্বর্ণের বার উদ্ধার

ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

চাঁদপুরে পিকআপ-অটোরিকশা সংঘর্ষে ৩ জনের মৃত্যু

দুর্নীতিবাজ-অর্থপাচারকারি প্রার্থীকে ভোট নয়: হাছান

বেলজিয়ামে আনটর্পে বিস্ফোরণে ভবন ধস, আহত ২০

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী শাম্মী আক্তার না ফেরার দেশে

ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

মিয়ানমার এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ নয়

রাজধানীর রাস্তায় পাওয়া যাবে অ্যাপভিত্তিক অটোরিকসা