আন্তর্জাতিক

মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭ (১৭:২৭)

রোহিঙ্গা সংকট: সমাধানে ঐকমত্য বিশ্ব নেতারা-চীনের ৩ দফা প্রস্তাব

রোহিঙ্গা-সংকট-সমাধানে-ঐকমত্য-বিশ্ব-নেতারা-চীনের-৩-দফা-প্রস্তাব

অসহায় রোহিঙ্গারা আসছে বাংলাদেশে

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের দ্রুত মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনে জোর দিয়েছেন আসেম নেতারা—আশা করা হচ্ছে এ সম্মেলনে আজ-মঙ্গলবার রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশেষ ঘোষণা আসবে।

সূত্র: ইউএনবি, এএফপি ও দ্য হিন্দু।

আজ-দুপুরে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে দু'দিনের এ সম্মেলন শেষ হবে।

গতকাল সম্মেলনের প্রথম দিনে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে ঐকমত্য পোষণ করেন বিশ্ব নেতারা। রাখাইন রাজ্যে চলমান সহিংসতা বন্ধ করার পাশাপাশি সেখান থেকে রোহিঙ্গাদের উৎখাত ঠেকাতে জোর পদক্ষেপ গ্রহণেরও আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। এ ছাড়া এ সংকট সমাধানে আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নেরও তাগিদ দেন এশিয়া-ইউরোপের এই প্রতিনিধিরা।

এ প্রক্রিয়ার সব সময় পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে কার্যকর উদ্যোগের কথা বলেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

তবে বিশ্ব সম্প্রদায়ের উদ্বেগ ও সংকট সমাধানের আহ্বানের মধ্যেও এ বিষয়ে নীরব থাকেরন দেশটির নেত্রী অং সান সু চি।

আসেম সম্মেলনের আগে গত রোববার রাখাইন রাজ্যের সংকটের কার্যকর সমাধানে তিন দফা সুপারিশ করেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা সু চির সঙ্গে দেখা করে এসব সুপারিশ তুলে ধরেন তিনি।

চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উভয়পক্ষ তাদের তিন দফা সুপারিশ গ্রহণ করেছে। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লু ক্যাং গতকাল বলেন, এ সুপারিশগুলো কার্যকরে উভয় দেশ সম্মত হয়েছে।

চীনের প্রস্তাব:

১. প্রথম পর্যায়ে রাখাইনে অস্ত্রবিরতি কার্যকর করতে হবে, যাতে শৃঙ্খলা আর স্থিতিশীলতা ফিরে আসতে পারে, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরি হয় এবং মানুষকে আর ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাতে না হয়।

২. অস্ত্রবিরতি কার্যকর হলে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমঝোতায় পৌঁছাতে হবে, যাতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের পথ তৈরি হয়।

৩. চূড়ান্ত ধাপে রোহিঙ্গা সঙ্কটের দীর্ঘমেয়াদী সমাধানে মনোযোগ দিতে হবে, যেখানে দারিদ্র্য বিমোচনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হবে।

গতকাল চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, রাখাইনের সঙ্কটের অবসানে তারা একটি গঠনমূলক ভূমিকা রাখতে আগ্রহী।

বেইজিং যে ফর্মুলা প্রস্তাব করেছে, তার অনেক কিছু গত সপ্তাহে মিয়ানমার সফরে আসা যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের কথাতেও এসেছে।

তবে তিনি রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগের স্বাধীন তদন্তের সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন, যা চীনের প্রস্তাবে নেই।

বাংলাদেশ ও মিয়ানমার ইতোমধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে আলোচনা শুরু করলেও শর্ত নিয়ে এখনও সমঝোতায় আসতে পারেনি দুই দেশ।

নেপিদোতে গতকাল সোমবার দু'দিনব্যাপী এশিয়া-ইউরোপের দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ১৩তম আসেম সম্মেলন শুরু হয়। এতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ ৫১টি দেশের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছেন।

সম্মেলনে নিরাপত্তা, বাণিজ্য, জলবায়ু পরিবর্তন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এবং দুই মহাদেশের চ্যালেঞ্জগুলো নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

সম্মেলনের প্রথম দিন সকালেই পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে একটি অনানুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে অংশ নেন এবং সেখানে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরেন। ১৩তম আসেম সম্মেলনের প্রথম দিনে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে সেখানে দুটি প্লেনারি সেশনে অংশ নেন তিনি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্মেলনের ফাঁকে সুইজারল্যান্ড, হাঙ্গেরি, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন।

দ্বিপক্ষীয় বিষয়ের পাশাপাশি সেখানে রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে কথা বলেন। জোর দেন বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরিয়ে নেয়ার ওপর। এ সময় একটি গ্রহণযোগ্য সমন্বিত ও স্থায়ী সমাধানের ওপর জোর দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। হাঙ্গেরির সঙ্গে বৈঠকে শিক্ষাক্ষেত্রে একটি সহযোগিতামূলক সমঝোতা স্মারকেও স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ। দুই দেশের পক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী ও হাঙ্গেরির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিজারত্তো এই স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

সম্মেলনের আগে সাইডলাইনে সু চির সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক প্রধান ফ্রেডারিকা মঘারিনি।

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কার্যকর উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে মঘারিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপদে ফেরাতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের মধ্যে অবশ্যই সমঝোতা চুক্তি প্রয়োজন।

তিনি আরও বলেন, রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে সু চির সঙ্গে তার বৈঠক হয়েছে— আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নে মিয়ানমার নেত্রীর আগ্রহ সত্যিই আশাব্যঞ্জক।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেও তার মনে হচ্ছে, দুই দেশের মধ্যে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে চুক্তি হতে পারে।

নিউজ ফোর ইউরোপের খবরে বলা হয়, আসেমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার আগে ফ্রেডারিকা মঘারিনি সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলাপকালে রোহিঙ্গা সংকটকে জরুরি মানবিক সংকট উল্লেখ করে দ্রুত স্থায়ী সমাধানের পথ খুঁজতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, আসেম সম্মেলনের মূল পর্বের বাইরে সাইডলাইন আলোচনায় রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

তবে উদ্বোধনী বক্তৃতায় রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে সু চি কিছুই বলেননি।

আসেমের উদ্বোধনী বক্তৃতায় ফ্রেডারিকা মঘারিনি বলেন, সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথে আরও বেশি সাফল্য লাভের জন্য এশিয়া ও ইউরোপকে যৌথভাবে অনেক ইস্যুতে কাজ করতে হবে। এ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে দুই মহাদেশের আন্তঃসম্পর্ক আরও জোরদার হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

গতকাল সম্মেলনের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দেন মিয়ানমারের নেত্রী সু চি।

তিনি বলেন, 'আমি বিশ্বাস করি, এ সম্মেলন এশিয়া ও ইউরোপের দেশগুলোর ভবিষ্যৎ উন্নয়নের গতিকে আরও ত্বরান্বিত করবে। বিশেষ করে এ অঞ্চলের কাঙ্ক্ষিত রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক উন্নয়নের মতো আসেমের তিন মূল লক্ষ্য অর্জনের সুযোগ করে দেবে।

সম্মেলনে সু চি বলেন, বিশ্ব এখন অস্থিতিশীলতার যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে— কারণ অবৈধ অভিবাসীরা সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস উগ্রপন্থা ছড়াচ্ছে। এমনকি পারমাণবিক যুদ্ধের হুমকি তৈরি করছে। সংঘাতের কারণে সমাজ থেকে শান্তি বিদায় নিয়ে রেখে যাচ্ছে অনুন্নয়ন ও দারিদ্র্য।

এর আগে গত রোববার কক্সবাজারের উখিয়া সফর করেন ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফ্রেডারিকা মঘারিনি, জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল, সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালস্টর্ম ও জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কানো। সেখানেই আসেম সম্মেলনে রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনা করার কথা জানিয়েছিলেন ফ্রেডারিকা মঘারিনি।

উল্লেখ, গত ২৫ আগস্ট থেকে রাখাইনে নিরাপত্তা অভিযানের নামে রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনী নৃশংসতা শুরু করে। এ অভিযানকে এরই মধ্যে জাতিসংঘ জাতিগত নিধনযজ্ঞ বলে অভিহিত করেছে, যা আন্তর্জাতিক আইনে মানবাধিকারবিরোধী অপরাধ। এরপর থেকে এ পর্যন্ত ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা প্রাণ বাঁচাতে রাখাইন থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

মধ্যপ্রাচ্যে নতুনভাবে উত্তেজনা সৃষ্টি হতে পারে: মাসুদ বিন মোমেন

রোহিঙ্গাদের অধিকারের বিষয়ে ইপির একটি রেজ্যুলেশন গৃহীত

উত্তর কোরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে পুতিন-ট্রাম্পের ফোনালাপ

সুচির নাম মুছে দিল ‘ফ্রিডম অব ডাবলিন সিটি’ অ্যাওয়ার্ড থেকে

আরও খবর

দুবাইয়ে জয় দিয়ে টি-টেন লিগ শুরু তামিম-সাকিবের

বিবিসি ওভারসীজ স্পোর্টস পারসোনালিটি অ্যাওয়ার্ড জিতলেন ফেদেরার

হুইলচেয়ার ক্রিকেট: ভারতকে হারালো বাংলাদেশ

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস: শতাব্দীর বর্বরতম নিধনযজ্ঞ দিন

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

এসপি হলেন ৯৬ কর্মকর্তা

হেদায়েত হোসেন চৌধুরীর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠিত

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী আর নেই

বিবিসি ওভারসীজ স্পোর্টস পারসোনালিটি অ্যাওয়ার্ড জিতলেন ফেদেরার

হুইলচেয়ার ক্রিকেট: ভারতকে হারালো বাংলাদেশ