শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন

রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ (১৬:২৮)

বেতন বৈষম্য কমানোর দাবিতে সহকারি শিক্ষকদের আমরণ অনশন চলছে

বেতন বৈষম্য কমানোর দাবিতে সহকারি শিক্ষকদের আমরণ অনশন

বেতন স্কেলে বৈষম্য কমানোর দাবিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকরা রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আমরণ অনশনে বসেছেন।

রোববার দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে রয়েছেন কয়েক হাজার শিক্ষক আর এতে সহকারি শিক্ষকদের আটটি সংগঠন এ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে।

শিক্ষক সমাজের অপর এক অংশের সভাপতি তপন কুমার মণ্ডল বলেন, সরাসরি প্রধানমন্ত্রী থেকে আশ্বাস না পাওয়া পর্যন্ত তারা অনশন ভাঙবেন না।

আজ দুপুরে শহীদ মিনার গিয়ে দেখা গেছে, কয়েক হাজার শিক্ষক সেখানে ছড়িয়ে–ছিটিয়ে অনশনে অংশ নিচ্ছেন। ইতিমধ্যে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। বাকিদের অনশনস্থলেই স্যালাইন দেয়া হয়েছে।

গতকাল সকাল ১০টা থেকে এ কর্মসূচি শুরু হয়ে রাতেও শিক্ষকেরা শহীদ মিনারে অবস্থান করেন।

বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক মহাজোটের ডাকে এ কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

সংগঠনের নেতারা বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা অনশন চালিয়ে যাবেন।

রাজশাহীর দুর্গাপুরের তেবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আখলাক হোসেন বলেন, আগে সহকারি শিক্ষকেরা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের এক ধাপ নিচের গ্রেডে বেতন পেতেন। কিন্তু এখন সহকারি শিক্ষকেরা তিন ধাপ নিচের গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন। এখন প্রধান শিক্ষক পান ১১তম গ্রেড আর সহকারি শিক্ষক পান ১৪তম গ্রেডে বেতন যা তাদের জন্য অপমানজনক ও বৈষম্যমূলক।

অনশনকারী শিক্ষকরা জানান, আগের বেতন স্কেলগুলোতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচেই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকরা বেতন পেতেন। কিন্তু ২০১৫ সালের অষ্টম বেতন কাঠামোতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকদের সঙ্গে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের ব্যবধান সৃষ্টি হয়েছে তিন ধাপ। এখন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকরা ১৪তম গ্রেডে (মূল বেতন ১০ হাজার ২০০) বেতন পাচ্ছেন। আর প্রধান শিক্ষকরা পাচ্ছেন ১০ম গ্রেডে (মূল বেতন ১৬ হাজার টাকা)। সহকারি শিক্ষকরা এ বৈষম্য নিরসন করে প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে ১১তম গ্রেডে (১২ হাজার ৫০০) তাদের বেতন চান।

অনশন কর্মসূচিতে সহকারি শিক্ষক সমাজ, সহকারী শিক্ষক সমিতি, সহকারী শিক্ষক ফাউন্ডেশন, সহকারী শিক্ষক সমাজ-২, সরকারি সহকারী শিক্ষক সমিতি, সহকারি শিক্ষক সমাজ-৩, সহকারি শিক্ষক সমিতি-২, সহকারি শিক্ষক ফোরাম, সহকারি শিক্ষক ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির ব্যানারে শিক্ষকরা অংশ নিয়েছেন। এ ছাড়া প্রধান শিক্ষক সমিতির চারটি সংগঠন এই কর্মসূচিতে ঐক্য প্রকাশ করেছে। নেত্রকোনার বারহাট্টার সহকারি শিক্ষক জহিরুল ইসলাম বলেন, দাবি না মানা পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। তিনি বলেন, ২০ বছর চাকরি করার পর একজন সহকারি শিক্ষক যে বেতন পান, একজন প্রধান শিক্ষক চাকরির শুরুতেই সেই বেতন পান। এর ফলে পেনশন পাওয়ার ক্ষেত্রে তারা বৈষম্যের শিকার হন।

এছাড়াও রয়েছে

গভীর রাতে আন্দোলনকারী ছাত্রীদের বের করে দিলো হল কর্তৃপক্ষ

ঢাবি ভিসি বাসায় হামলা: মামলা প্রত্যাহারে সময় বাড়লো ৭ দিন

জাবিতে বিধি লঙ্ঘনের প্রতিবাদে প্রগতিশীল শিক্ষকদের সর্বাত্মক ধর্মঘট

এসএসসি-সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৬ মে

মামলা প্রত্যাহারের দাবি, না হলে আবার আন্দোলন

৩৯তম বিসিএস: পিএসসির হেল্পলাইন চালু

গেজেট না হওয়া পর্যন্ত কোটা সংস্কার আন্দোলন স্থগিতে

সরকারি চাকরিতে কোটা থাকছে না

কমনওয়েলথের নতুন নেতা প্রিন্স চার্ল

ভারতের প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের জন্য নোটিশ

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে আ’লীগ প্রার্থী সমর্থন দিয়েছে জাপা

নেপালের বিমানবন্দরে ১৩৯ যাত্রী নিয়ে ছিটকে পড়লো মালয়েশীয় প্লেন