অর্থনীতি

সোমবার, ০৯ জুলাই, ২০১৮ (১৮:৩৯)

ব্যাংকের সুদের হারে বিশৃঙ্খলা

ব্যাংকের সুদের হারে বিশৃঙ্খলা

ব্যাংকের ঋণ আমানতের সুদের হারে বিশৃঙ্খলার কারণে কিছু কিছু ব্যাংক ৯ শতাংশে ঋণ বিতরণ শুরু করলেও আমানত আসছে না ৬ শতাংশে। এ অবস্থায় সিঙ্গেল ডিজিট অর্থাৎ ১০ শতাংশের নিচে ঋণের সুদের হার বেশিদিন ধরে রাখা সম্ভব হবে না বলে মনে করেন ব্যাংকাররা।

আর উপর থেকে চাপিয়ে দেয়া এ সিদ্ধান্ত দেশের ব্যাংক খাতকে তছনছ করে দেবে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহীম খালেদ।

৩ মাস থেকে ৬ মাস কিংম্বা বিভিন্ন মেয়াদী আমানত সুদের হার ৬ শতাংশ। ১০ শতাংশের উপরে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার এবং প্রায় ৬ শতাংশের কাছাকাছি মুল্যস্ফীতির বাজারে ৬ শতাংশ সুদে ব্যাংকে টাকা জমা রাখা নিরুৎসাহিত করছে আমানতকারীদের।

ব্যাংকে টাকা জমা রাখার পরিবর্তে বরং তারা এখন ব্যাংক থেকে টাকা তুলে সঞ্চয়পত্র কিনছেন কিংম্বা অন্যত্র বিনিয়োগ করছেন।

এ অবস্থার মধ্যেও উপর মহলের নির্দেশে ৯ শতাংশ সুদে ঋণ বিতরণ শুরু করেছে কয়েকটি ব্যাংক। তবে ৬ শতাংশে আমানত না পেলে ৯ শতাংশ সুদে ঋণ বিতরণ করে কতদিন টিকতে পারবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো?

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহীম খালেন মনে করেন, ৯-৬ এর সিদ্ধান্তে আমানতকারীদের স্বার্থ ক্ষুণ্ণ হয়েছে। লাভবান হচ্ছে গুটি কয়েক ব্যবসায়ী। এটি দেশের ব্যাংকখাতকে আরো সংকটে ফেলবে বলে আশংকার তার।

একদিকে মালিকদের অধিক মুনাফার চাহিদা আর অন্যদিকে স্বল্পসুদে ঋণ বিতরণের চাপ—এ দুইয়ে মিলে এখন উভয় সংকটে ব্যাংকের নির্বাহীরা।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

কবে শুরু হচ্ছে ওয়ানস্টপ সার্ভিস? জানতে চান ব্যবসায়ীরা

শুরু হলো জাতীয় আয়কর মেলা-২০১৮

বৈশ্বিক সূচকে অবস্থানের অবনমন ঘটেছে বাংলাদেশের

খালেদা জিয়া ক্ষমতায় আসলে সমৃদ্ধি থমকে যাবে: অর্থমন্ত্রী

বাংলাদেশের অর্থনীতি ৭.১% হারে বাড়বে: আইএমএফ

গ্যাসের দাম বাড়ছে শিল্প-কারখানা ও যানবাহনে

জিডিপি হবে ৭.৫% পূর্বাভাস দিল এডিবি

৫% সুদে ঋণ সুবিধা পাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা

৩০ ডিসেম্বরই নির্বাচন: ইসি সচিব

অগ্নিসংযোগ-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান শেখ হাসিনার

ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়বেন ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীরা

সমৃদ্ধশালী দেশ গড়তে কাজ করছে সরকার: শেখ হাসিনা