অর্থনীতি

বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭ (১৮:২৮)

বিদ্যুৎ-জ্বালানি প্রাপ্তির ক্ষেত্রে নাজুক অবস্থায় বাংলাদেশ

বিদ্যুৎ-জ্বালানি-প্রাপ্তির-ক্ষেত্রে-নাজুক-অবস্থায়-বাংলাদেশ

বিদ্যুৎ

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রাপ্তির ক্ষেত্রে এশিয়ার স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নাজুক অবস্থা বাংলাদেশের। বাংলাদেশে ৫০ শতাংশ গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কাছে এখনো বিদ্যুৎ সুবিধা যায়নি। বুধবার জাতিসংঘের উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা আঙ্কটাডের সবশেষ প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

প্রকাশ করেছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ-সিপিডি। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে, প্রতি বছর স্বল্পোন্নত দেশগুলোকে জ্বালানি খাতে গড়ে ১ হাজার ২'শ কোটি থেকে ৪ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ প্রয়োজন বলে মনে করে আঙ্কটাড।

প্রতিবেদন বলা হয়, ২০১৪ সালের তথ্যানুযায়ী বাংলাদেশ মাত্র ৬০ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা ভোগ করে। গ্রামে এ সংখ্যা আরো কম, মাত্র ৫০ শতাংশ। এর মধ্যেও আবার ঘনঘন লোডশেডিং তো আছেই। বিদ্যুৎ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের এ অবস্থান আফগানিস্তান, নেপাল, ভুটান ও মিয়ানমারেররও পেছনে।

আরো বলা হয়, ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে, কম দামে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে হবে। এ সুবিধা নিশ্চিত না করা গেলে, শিল্পায়ন বাড়বে না, জীবনযাত্রার মানও বাড়ানো সম্ভব হবে না। তবে এজন্য দরকার বিপুল পরিমাণে বিনিয়োগ।

আর আঙ্কটাডের প্রতিবেদন বলছে, উন্নত দেশগুলোর চেয়ে, স্বল্পোন্নত দেশগুলোতে জ্বালানি খরচ দ্বিগুন। তাই কমদামের পরিবেশ বান্ধব জ্বালানির প্রতি নজর দিতে, স্বল্পোন্নত দেশগুলোর প্রতি সুপারিশ আঙ্কটাডের।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

রাষ্ট্রায়ত্ত ৮ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

সরকারে বড় সাফল্য আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, মতামত বিশ্লেষকদের

তিন ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষায় বাধা নেই

জনতা-সোনালী-রূপালী ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধের নির্দেশ

আরও খবর

দেশে রপ্তানি আয় বেড়েছে ৩ গুণ: শেখ হাসিনা

শামীম ওসমান-আইভিকে ডাকা হবে: ওবায়দুল

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন: চুক্তির বিষয়ে চারটি গভীর সংশয় প্রকাশ

উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ভর্তি হতে পারবেন তরিকুল

না’গঞ্জের বন্দরে গণপিটুনিতে সন্দেহভাজন দুই ডাকাত নিহত

রাখাইন রাজ্যে পুলিশের গুলিতে নিহত ৭

শামীম ওসমান-আইভিকে ডাকা হবে: ওবায়দুল

ডিএনসিসির উপ-নির্বাচন স্থগিত করল হাইকোর্ট

ডিএনসিসি উপনির্বাচন কার্যক্রম স্থগিত করলো ইসি

দেশে রপ্তানি আয় বেড়েছে ৩ গুণ: শেখ হাসিনা