আদালত

ksrm

সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (১৪:০৩)

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই শুরু যুক্তিতর্ক

খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি শুরু।

সোমবার পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতর স্থাপিত ৫ম বিশেষ জজ আদালতে এ যুক্তিতর্ক শুনানি হচ্ছে।

গত ১২ সেপ্টেম্বর এ মামলার যুক্তিতর্ক শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল তবে ওইদিন খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হননি। তার পরিবর্তে খালেদার কাস্টডি আদালতে পাঠানো হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয় খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হতে ‘অনিচ্ছুক। এরপর ১৩ সেপ্টেম্বরও খালেদার ‘অনিচ্ছার’ কথা জানিয়ে একই কাস্টডি পাঠানো হয় আদালতে।

সেদিন মামলার বাদী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী ও আসামিপক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনে খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচার চলবে কি-না, এ বিষয়ে আদেশের জন্য ২০ সেপ্টেম্বর দিন ঠিক করে আদালত।

গত ২০ সেপ্টেম্বর আদালত জানায়, খালেদা জিয়া বিচার পর্যায়ে ৪০ বার, আত্মপক্ষ সমর্থন পর্যায়ে ৩২ বার (আদালতে উপস্থিত হতে) সময় নিয়েছেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি অন্য একটি মামলায় কারাগারে যাওয়ার পর এতোদিন পর্যন্ত এ মামলার যুক্তিতর্ক করা শুরু করা সম্ভব হয়নি। কোনো আসামি যদি দিনের পর দিন (আদালতে) না আসেন তবে তো মামলার বিচারপ্রক্রিয়া থেমে থাকতে পারে না। তাই খালেদা জিয়াকে ছাড়াই অন্য আসামিদের পক্ষে এ মামলার যুক্তিতর্ক শুরুর জন্য আইনজীবীদের নির্দেশ দেয় আদালত।

এরপর ওইদিন কিছু সময় যুক্তিতর্ক শুনানি হয় পরে সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করে আদালত। পরবর্তী শুনানির জন্য ২৪, ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর দিন ঠিক করে আদালত।

এ মামলায় মোট আসামি চার জন, তারা হলেন: হলেন- খালেদা জিয়ার তৎকালীন রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছ চৌধুরীর তৎকালীন একান্ত সচিব বর্তমানে বিআইডব্লিউটিএ-এর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

এরমধ্যে হারিছ চৌধুরী পলাতক রয়েছেন। খালেদা জিয়াসহ অন্য তিনজন রয়েছেন জামিনে।

সোমবার খালেদার অনুপস্থিতিতে জিয়াউল ইসলাম মুন্না ও মনিরুল ইসলাম খানের পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি হবে।

গত ৪ সেপ্টেম্বর কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিচার সম্পন্ন করতে ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ী আদালত হিসেবে ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করেছে আইন মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিভাগ এ গেজেট প্রকাশ করে।

প্রসঙ্গত: ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা করা হয়। এ ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে এ মামলা করে দুদক।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদণ্ড হওয়ায় পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি আছেন তিনি।

এরপর থেকে মামলার শুনানির দফায় দফায় তারিখ পড়লেও ‘অসুস্থ থাকায়’ চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আদালতে হাজির হতে পারেননি তিনি।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

জিয়া চ্যারিটেবল মামলার রায় ২৯ অক্টোবর

খালেদার অনুপস্থিতিতে বিচারকাজ চলবে

খালেদা জামিন বাড়ল ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত বৃদ্ধি

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ আসামিপক্ষের আইনজীবীদের

তারেকের সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলেছে ২য় তদন্ত প্রতিবেদনে

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের

১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, ১৯ জনের যাবজ্জীবন, ১১ সরকারি কর্মকর্তাকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দানকারীদের নেতৃত্বশূন্য করতেই গ্রেনেড হামলা

জেনেভার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন রাষ্ট্রপতি

তাইওয়ানে ট্রেন লাইনচ্যুত, নিহত ১৮

তারেকের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই: ড. কামাল

ফিক্সিং নিয়ে ডকুমেন্টারি প্রচার করল আল-জাজিরা