আদালত

ksrm

সোমবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (১২:৪১)

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের ডিভিশন বহাল

আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের প্রথম শ্রেণির ডিভিশন দেয়া নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত না করে নট টু ডে (আজ আদেশ নয়) আদেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত।

এর ফলে শহিদুল আলমকে ডিভিশন দিতে বলা হাইকোর্টের আদেশ আপাতত বহাল রয়েছে বলে জানান তার আইনজীবীরা।

গত ৫ সেপ্টম্বর শহিদুল আলমকে ডিভিশন দেয়ার আদেশ দেয় হাইকোর্ট। ওই আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ-সোমবার চেম্বার বিচারপতি ইমান আলী এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে, শহিদুল আলমের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন, জ্যোতির্ময় বড়ুয়া প্রমুখ।

গত ৫ সেপ্টম্বরের তথ্য:

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দীর সুবিধা দিতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

বুধবারএক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি বোরহান উদ্দিন ও মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দীর মর্যাদা দিতে নির্দেশনা চেয়ে তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ রিটটি করেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সারা হোসেন তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

পরে জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দীর সুবিধা দিতে স্বরাষ্ট্রসচিব ও আইজি প্রিজনের প্রতি নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এর আগে ৪ সেপ্টম্বরের নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে ‘উসকানিমূলক মিথ্যা’ প্রচারের অভিযোগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদন শুনানিতে বিব্রত বোধ করে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ।

গতকাল বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে বিব্রতবোধের এ ঘটনা ঘটে।

হাইকোর্টের বেঞ্চে জামিন আবেদনটি শুনানির তালিকায় ছিল।

আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সারা হোসেন ও জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ, অমিত তালুকদার ও অরবিন্দ কুমার রায়।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকেদের বলেন, বেঞ্চের একজন বিচারপতি বিব্রত বোধ করেছেন, আবেদনটি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে আদালত।

গত ৬ আগস্ট শহিদুল আলমকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। এর আগের দিন রাতে ধানমন্ডির বাসা থেকে তাকে তুলে নেয় ডিবি। সাত দিনের রিমান্ড শেষে গত ১২ আগস্ট শহিদুলকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয় নিম্ন আদালত।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে করা মামলায় গত ৬ আগস্ট ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম শহিদুল আলমের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে। ১৪ আগস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করা হলে ১১ সেপ্টেম্বর শুনানির জন্য দিন ধার্য রাখে। এরপর ১৯ আগস্ট শুনানির তারিখ এগোনোর জন্য আবেদন করা হলে তা গ্রহণ করেনি আদালত। এ অবস্থায় ২৬ আগস্ট শহিদুল আলমের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন চাইলে ওই আদালত শুনানির জন্য তা গ্রহণ করেনি। এ অবস্থায় ২৮ আগস্ট হাইকোর্টে তার জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়। ২৯ আগস্ট আবেদনটি শুনানির জন্য আরজি জানানো হয়। গতকাল শুনানির জন্য আবেদন করা হয়।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

খালেদার অনুপস্থিতিতে বিচারকাজ চলবে

খালেদা জামিন বাড়ল ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত বৃদ্ধি

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ আসামিপক্ষের আইনজীবীদের

তারেকের সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলেছে ২য় তদন্ত প্রতিবেদনে

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের

১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, ১৯ জনের যাবজ্জীবন, ১১ সরকারি কর্মকর্তাকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দানকারীদের নেতৃত্বশূন্য করতেই গ্রেনেড হামলা

বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেককে যাবজ্জাীবন

সাংবাদিকদের সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে আইনের খসড়া অনুমোদন

রামকৃষ্ণ মিশনে প্রধানমন্ত্রী

২৪ অপরাধের শাস্তির বিধান রেখে সম্প্রচার আইন অনুমোদন

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি ফল স্থগিত